একতরফা ভালোবাসা

From WikiAlpha
Jump to: navigation, search


একতরফা ভালোবাসা Ponishare-verified.png

Picture Of One Side Love
Native name One Side Love (একতরফা ভালোবাসা )
Born 24 October 2003 (2003-10-24) (age 18)
সুত্রাপুর , ঢাকা , বাংলাদেশ
Residence বাংলাদেশ
Nationality বাংলাদেশ
Education কে এল জুবিলী স্কুল এন্ড কলেজ
Occupation
Years active ২০২২- বর্তমান
Known for

গল্প- একতরফা ভালোবাসা

]
Home town সুত্রাপুর , ঢাকা , বাংলাদেশ
Height ৫.০০"
Website
https://www.facebook.com/110347817327444/


একতরফা ভালোবাসা

ছেলেটির সাথে মেয়েটির একটি চ্যাটিং গ্রুপে পরিচয়! সেদিন ছেলেটি মেয়েটির সাথে প্রথম কথা বললেছিলো, গ্রুপে সেইদিন-ই মেয়েটিকে ভালো লেগে যায়!

তারপর ছেলেটি বেশকিছু দিনপর সাহস করে মেয়েটির ইনবক্সে মেসেজ দিয়েছিলো! মেয়েটি তারপর রিপ্লাই করলো, কিন্তু মেয়েটি তাকে ভাইয়া বলে সম্মন্ধন করলো!! যা শুনে ছেলেটি খুব কষ্ট পেয়েছিলো!

কিন্তু তারপর ছেলেটি ভাবলো এই প্রথম মেসেজ দিয়েছে বলে তাকে ভাইয়া বলে ডাকেছিলো! তাই সে একটু কষ্ট অনুভাব করেও কিছু মনে রাখলো না!

তারপর ছেলেটি ভাবলো সে মেয়েটিকে পছন্দ করে সেটা বলে-ই দিবে! ছেলেটি ভয় পাচ্ছিলো যদি এটা শুনে মেয়েটি ওর সাথে আর কথা না বলে! তাই আর ছেলেটির সাহস হলো না কথাগুলো প্রকাশ করার!

ছেলেটি মেয়েটির সাথে নরমাল ভাবে বেশকিছু দিন কথা বলতে লাগলো! তারপর একটা সময় ছেলেটি মেয়েটির অনেক ভালো বন্ধু হয়ে লেগো! মেয়েটি ছেলেটি-কে অনেক বিশ্বাস করতে শুরু করলো!

একদিন তাদের কথার প্রসঙ্গে মেয়েটি তাকে জিঙ্গাসা করলো তার গালফ্রেন্ডের নাম কি, ছেলেটি কিছু বললো না! তারপর...

বেশকিছু দিনপর মেয়েটি আবার জিঙ্গাসা করলো.. আপনার গালফ্রেন্ডের নাম কি? ছেলেটি বেশ ভেবে, উত্তরে মেয়েটির নামের প্রথম ওয়াড ও লাস্ট ওয়াড বললো!! মেয়েটি শুনে কিছুক্ষন পর একটা কথা বললো....

যাকে আপনি পছন্দ করেন বা ভালোবাসেন সেই মেয়েটি আপনাকে বেস্টফ্রেন্ড ভাবে...

কথাটি শুনে ছেলেটির পায়ের নিচের মাটি সরে গেলো, মনে হচ্ছিলো পুরো পৃথিবী-টা ছেলেটির বুকে ভেঙ্গে পরলো! ছেলেটি বুঝতেও পরলো না ছেলেটির চোখে পানি দিয়ে কখন মোবাইলে স্কিন ভিজে গেলো!

তারপরও ছেলেটি মেয়েটিকে কিছু বুঝতে না দিয়ে নরমাল ভাবে কথা বলতে লাগলো! এমন করে বেশকিছু দিন কেটে গেলো! কিন্তু ছেলেটি একটুও মেয়েটি-কে ভুলতে পারলো না! তারপর...

এমন করে বেশ অনেকটা দিন কেটে গেলে... ছেলেটি মেয়েটিকে ভুলে যাওয়ার চেষ্টায়,, এমন সময় হঠাৎ ছেলেটির ফোন বেজে উঠলো মেয়েটি তাকে এই প্রথম কল দিয়েছে,, ছেলেটির খুশির সীমা ছিলো না....

১০মিনিট ১৪সেকেন্ড কথা হয়! সেইদিন ছেলেটি এক পৃথিবী সুখ উপভোগ করছিলো....

এরপর ছেলেটি এস.এস.সি এক্সম নিয়ে বিজি হয়ে গেলো! তারপর.... হঠাৎ একদিন এক্সাম শেষে মেয়েটির সাথে ফাস্ট দেখা... তখন সময় ৯:২৫মিনিট... কিছুক্ষনের জন্য ছেলেটির সময় থমকে গিয়েছিলো! ছেলেটির খুশির সীমা ছিলো না যদিও মেয়েটি ছেলেটিকে দেখেনি!

এমন করে বেশকিছু দিন কেটে যায়.... এক্সামও শেষ হয়ে যায়! রেজাল্টও দিয়ে দেয়! ছেলেটি নতুন কলেজে ভর্তি হয়.. ছেলেটির অনেক ইচ্ছা থাকা সর্তেও কোনো একটি কারণে মেয়েটির সাথে একই কলেজে ভর্তি হতে পারে না....

সময়ের সাথে সাথে ছেলেটিরও নিজেকে গুটিয়ে নেয়... মেয়েটির সাথে সব জায়গা থেকে যোগাযোগ অফ করে দেয় ছেলেটি! আর বার বার মেয়েটির কাছে ভালোবাসা প্রকাশ করে নিজের ভালোবাসাকে ছোটো করতে চায়নি সে! কিন্তু ছেলেটি এখনও মেয়েটি-কে অনেক ভালোবাসে"

একতরফা ভালোবাসা এমন-ই হয়, যেখানে কোনো চাওয়া পাওয়া থাকে না, ভালোবাসাও আমার কষ্ট গুলোও আমার, সুখগুলোও আমার, কান্নাও আমার, হাসিও আমার-ই! একতরফা ভালোবাসায় যে, সুখ! তা অন্য কোনো ভালোবাসায় পাওয়া সম্ভব না! :’)

ভালোবাসা এমন-ই হয়! আর এমন-ই হওয়া উচিত! এইভাবে-ই বেঁচে থাকুক সবার ভালোবাসা!❤


প্রধান চরিত্র

লেখক: আলিফ খান

গল্প : আলিফ খান

কাহিনী নাম : একতরফা ভালোবাসা

অন্যান্য চরিত্র

ম্যালরি

তানজিল

মোঃ বাবুল

রোজা

নিরুপা